ডায়াবেটিস প্রতিরোধ সম্ভব


স্বাস্থ্য আন্দোলন এর আয়োজনে ৬ এপ্রিল ২০১৬, বিকেল ৩ টায় নারীগ্রন্থ প্রবর্তনায় “ডায়বেটিস সংক্রান্ত সচেতনতা ও প্রতিরোধের উপায়” নিয়ে এক মুক্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এই সভায় বিভিন্ন উন্নয়ণ প্রতিষ্ঠান, নারী সংগঠন ও গার্মেন্ট শ্রমিকদের নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

ড. এম এ. সোবহান বলেন মধ্যম ও নিম্ন আয়ের দেশ গুলিতে এই রোগের প্রাদৃর্ভাব বেড়েছে। ডায়াবেটিস একটি নিরব ঘাতক ব্যাধি। ৬০ এর দশকে ইরি ধান প্রবর্তনের পর থেকে ডায়বেটিকের আক্রান্ত হওয়ার হার বেড়ে গেছে। ব্রি ধান ২৮ ব্রিধান ২৯ খাদ্যমান পরীক্ষা করে দেখা গেছে হাই গ্লাইসোমিক আছে। গ্লোকোজ বেশি হচ্ছে সেটা সামাল দেয়ার জন্য ইনসুলিন নাই। আধুনিক হতে গিয়ে আমরা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হচ্ছি। ডায়াবেটিস থেকে নিস্তার পেতে হলে স্থানীয় জাতের ধানের চাষ করতে হবে। ঢেঁকি ছাটা চালে ভাত খেতে হবে। ফাষ্ট ফুড ও, ভেজাল খাবাব থেকে মুক্ত থাকতে হবে। আঁশ জাতীয় খাবার বেশি খেতে হবে। কোন কোন খাবার খেতে হবে সে বিষয়ে আলোচনা করেন। জীবন যাপনের পরিবর্তন আনতে হবে।


স্বাস্থ্য আন্দোলন ডায়াবেটিস মতবিনিময় সভা


আফরীন গার্মেন্ট শ্রমিক স্বাধীনবাংলা কর্মচারী ফেডারেশন। শ্রমিকরা নিজেরা জানেও না তাদের ডায়াবেটিস আছে কিনা? শরীর ঝিম ঝিম করে দুর্বল লাগে, হাত পা ফুলে যায়,এর জন্য তারা ফার্মেসীতে যায়। তখন তার রক্ত পরীক্ষা করতে দেয়। রক্ত পরীক্ষায় ধরা পড়ে তার ডায়াবেটিস। ডায়াবেটিসের চিকিৎসা খুব ব্যয়বহুল। অনেকের পক্ষে সম্ভব হয়না এই চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়া। মাঝ পথে গিয়ে চিকিৎসা অনেকে বন্ধ করে দেয়। আমরা আলোচনা শুনলাম আমরা আমাদের সহকর্মীদের সাথে ডায়াবেটিসের ভয়াবহতা নিয়ে আলোচনা করবো এবং তাদের সচেতন করবো।


স্বাস্থ্য আন্দোলন ডায়াবেটিস মতবিনিময় সভা

স্বাস্থ্য আন্দোলন ডায়াবেটিস মতবিনিময় সভা

আরো জানতে এখানে দেখুন: http://ubinig.org/index.php/home/showAerticle/118/bangla


ছাপবার জন্য এখানে ক্লিক করুন


৫০০০ বর্ণের অধিক মন্তব্যে ব্যবহার করবেন না।