দাই মা সম্মেলন ২০১৪: দাই মাদের জ্ঞানের স্বীকৃতি চাই


দাই মা সম্মেলন ১৪ থেকে ১৫ মার্চ কুষ্টিয়ায় নবপ্রাণ আন্দোলনের আখড়াবাড়িতে অনুষ্ঠিত হয়। ছেঁউড়িয়ার দোল উৎসবের ঠিক আগে এই সম্মেলনে এসে দাইমায়েরা একই সঙ্গে নবপ্রাণ আখড়াবাড়ির কাজের সঙ্গেও পরিচিত হয়েছেন। কুষ্টিয়া জেলার সিভিল সার্জন ডঃ মোস্তাফিজুর রহমান এই সম্মেলন উদ্বোধন করে দাই মাদের বিপুল ভাবে উৎসাহিত করেছেন। এটা উবিনীগের উদ্যাগে তৃতীয় দাই সম্মেলন।

দাইমায়ের স্বীকৃতি দাও, মা ও শিশুর জীবন বাঁচাও এই শ্লোগান নিয়ে অনুষ্ঠানটি গোছানো হয়। মা ও শিশুর স্বাস্থ্যব্যবস্থা মজবুত করারার মধ্য দিয়ে জাতীয় স্বাস্থগ্য ব্যবস্থা মজবুত করা যায়। কিভাবে মা ও শিশুর স্বাস্রগ্যব্যবস্থার সঙ্গে সামগ্রিক স্বাস্থ্যব্যবস্থা জড়িত দাই মা সম্মেলনে তা আলোচিত হয়।


দাই সম্মেলন ২০১৪ কুষ্টিয়ার


সম্মেলনে দাইমাদের দক্ষতা বৃদ্ধি, ঝুঁকি চিনে সরকারী হাসপাতালে 'রেফার' অর্থাৎ উপযুক্ত চিকিৎসার জন্য পাঠানো এবং পুষ্টি সেবার বিষয়ে আলোচনা হয়।

বাংলাদেশের শতকরা ৮০ ভাগের বেশী নারী গ্রামে গঞ্জে দাইমাদের সহায়তায় সন্তান প্রসব ও তার পূব ও পরবর্তী সেবা নেয়। এই দাই মায়েরা সরকারের পাশাপাশি মানব সেবায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। উবিনীগ দীর্ঘদিন স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করতে গিয়ে এই দাই মায়েদের সাথে কাজ করছে এবং প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ ও সরকারী স্বাস্থ্য সেবার সাথে সংযুক্ত করছে। এর ফলে শুধু দাই মাদের আরও অভিজ্ঞ ও দক্ষ করে তোলা হচ্ছে তাই না, একই সঙ্গে গ্রামের মানুষ যেন সরজকারী স্বাস্থ্যব্যবস্থার সুবিধাটুকু পায় তার সুযোগও সম্প্রসারিত হচ্ছে।


দাই সম্মেলন ২০১৪ কুষ্টিয়ার


বাংলাদেশে ১৫টি জেলায় দাইঘর পরামর্শ কেন্দ্র উবিনীগ স্থাপন করেছে, সেখানে পরামর্শ সেবা ও সরকারী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ঝুঁকিপূর্ণ রোগীদের পাঠানোর কাজ শুরু করে ২০১২ সালে। এই কাজের অংশ হিসেবে ২০টি দাইঘরের প্রতিনিধিদের নিয়ে এই সম্মেলনের আয়োজন করে। সম্মেলনে দাইমাদের দক্ষতা, ঝুঁকি চিনে সরকারী হাসপাতালে পাঠানো এবং পুষ্টি সেবার বিষয়ে আলোচনা হয়।

বিস্তারিত প্রতিবেদন অচিরেই প্রকাশ করা হবে।

 

 


Click Here To Print


Comments Must Be Less Than 5,000 Charachter